1. suhagranalive@gmail.com : admin :
January 24, 2021, 11:57 pm
শিরোনাম:
ছাত্র ইউনিয়নের জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত, ইমন চৌধুরী সভাপতি আব্বাস তালুকদার সম্পাদক নির্বাচিত নারী ও শিশু ধর্ষকদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন আর প্রতিবাদে উত্তাল পিরোজপুর নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরোধী শক্তি’র চেয়ারম্যান এর সাথে পিরোজপুর জেলা কমিটির মতবিনিময় নারী ও শিশু নির্যাতন বৃদ্ধির প্রতিবাদে পিরোজপুরে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা খুলনায় যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষের শুভ উদ্ভোধন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন খুলনার ফুটবল সংগঠক ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব এ্যাড.সাইফুল ইসলাম মঠবাড়িয়ার জনগনের আস্থার প্রতীক(ওসি) মাসুদুজ্জামান মিলুর জন্মদিনে কুয়েত যুবলীগ নেতা মীর তারেকের শুভেচ্ছা পিরোজপুরে আন্তর্জাতিক ডেলিভারি হিরো ফুডপান্ডার শুভ উদ্ভোদন মঠবাড়িয়ায় ক্যান্সার আক্রান্ত সবজি বিক্রেতাকে মানব কল্যাণ ঐক্য পরিষদের আর্থিক সহায়তা মানবতার উজ্জল দৃষ্টান্ত মোংলায় ধর্ষিতা নারীর ভূমিষ্ট সন্তানের দায়িত্ব নিলেন পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান জসিম

হোমিও চিকিৎসায় একজন করোনা যোদ্ধার জয়ী হওয়ার গল্প কিভাবে মৃত্যু দুয়ার থেকে ফিরলেন

  • প্রকাশের সময় Friday, June 26, 2020
  • 560 জন দেখেছেন

জুবায়ের আল মামুন,সম্পাদক,দক্ষিণাবার্তাঃ
হাসান মামুন ভাই এর ফেইস বুক আইডির পোস্ট তুলে ধরলাম আলহামদুলিল্লাহ প্রিয় ভাই হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় ভাল হয়ে গেছেন-আলহামদুলিল্লাহ!সকল প্রসংশা মহান রাব্বুল আলামিনে।

আমি হাসান_মামুন। রোগ মুক্তির মালিক হচ্ছেন মহান আল্লাহ্তালা। তবুও চিকিৎসা মাধ্যমে মহান আল্লাহর রহমতে আমরা সুস্থ্ হই। আমি বিগত ৫ জুন থেকে অসুস্থ্য হই। ৫ দিন ঘরে থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ্য না হবার কারনে জ্বর শ্বাসকষ্ট নিয়ে খুলনা হাসপাতালে ১২ জুন ভর্তি হই। সেখানে অামাকে অক্সিজেন সার্পোটে রাখা হয়েছিল তবুও আমার কোন উন্নতি না হওয়াতে এবং করোনা পজিটিভ হওয়াতে অামাকে করোনা চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত খুলনা ডায়াবেটিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেও ১৯ জুন পর্যন্ত অক্সিজেন চলছিলো। তবুও অামার শ্বাসকষ্ট এতটুকু কমেনি ও অক্সিজেনের স্যাচুরেশন বাড়েনি। এমতাবস্থায় আমার ছোট ভাইয়ের বন্ধু Md. Mijanur Rahman Sumon এর মাধ্যমে ডা. বিপুল চৌধুরীর খোঁজ পাই। তার সাথে অনেক কষ্টের সহিত কথা বলি। তিনি দ্রুত ঔষধ লিখে দেন। ১৯ তারিখ রাতে ঔষধ হাতে পাই। এই রাতে দুই ডোজ খাবার পর থেকেই আল্লাহর রহমতে ক্রমান্বয়ে ভালো অনুভব করি। পরদিন ২০ তারিখে সারাদিন ও রাতে অারো চার ডোজ ঔষধ খাই। আলহামদুলিল্লাহ এর পর থেকে অনেক সুস্থ হয়ে যাই। ২১ তারিখে ফজরে নামাজ পড়লাম ও আল্লাহর কাছে ক্ষমা ও দোয়া চাইলাম। ঐদিন থেকে অার অক্সিজেন লাগেনি বললেই চলে। সত্যিই আমি ডা. বিপুল চৌধুরীর (দাদা) কাছে কৃতজ্ঞ। কারণ আমার অন্তিম মুহুর্তে তিনি আমার পাশে এসে আমাকে সার্পোট দিয়েছেন। আমি ভাবতেই পারিনি হোমিওপ্যাথি ঔষধ এতটা কার্যকরী ও এত দ্রুত কাজ করে!হোমিওপ্যাথির উপর আস্থা ও ভালোবাসা বহুগুনে বেড়ে গেল। বর্তমানে আমি আলহামদুলিল্লাহ সুস্থ্ আছি। সবার কাছে দোয়া চাই যেন জীবনের অবশিষ্ট দিনগুলো ভালো কাজে ব্যয় করতে পারি। আরো ধন্যবাদ জানাচ্ছি ছোট ভাই মিজানুর রহমান সুমনকে। ও নিজের ভাইয়ের মতই সবসময় দিন রাত খোজ নিয়েছে। ভালো থাকুক পৃথিবীর সকল মানুষ।

শেয়ার করুন

একই ধরনের খবর
ব্রেকিং নিউজ