1. suhagranalive@gmail.com : admin :
June 21, 2021, 7:46 am
শিরোনাম:
নুন্যতম বিশৃংখলা বা বাধাদান বরদাস্থ করা হবে না -পুলিশ সুপার পিরোজপুর  যমুনায় বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতুর নির্মাণসামগ্রী এখন মোংলায় খালাসের অপেক্ষায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ড কাপ অনূর্ধ্ব ১৭ ফুটবল টুনামেন্ট ২০২১ এর পিরোজপুর জেলার অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন পিরোজপুর সদর উপজেলা ৯৯৯ এ কল পেয়ে ঝড়ের কবলে সাগরে দিকভ্রান্ত স্পিডবোট থেকে পাঁচ যাত্রীকে উদ্ধার বজ্রপাত থেকে বাঁচতে বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতর ২০টি জরুরি নির্দেশনা দিয়েছে পিরোজপুরে জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইন চলবে আগামী ০৫ জুন থেকে ১৯ জুন ২০২১ পর্যন্ত ০৬ মাস থেকে ৫ বছর সকল শিশুদের এ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে মঠবাড়িয়ার দাউদখালিতে ফেইক আইডি বানিয়ে জনপ্রিয় ওয়ার্ড মেম্বারের নামে অপপ্রচার জন মনে অসন্তোষ থানায় অভিযোগ দায়ের ইসরাইলের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ ভূমিকার প্রশংসায় ফিলিস্তিন রাস্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ৩৫ হাজার পাঞ্জাবি উপহার দিলেন ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগ সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম “ইউনিটি ফর ওয়েলফেয়ার” স্লোগানে কর্মহীন মানুষের পাশে ঈদ উপহার নিয়ে ‘ফ্রেন্ডস ৯৭ পিরোজপুর

অবশেষে চলে গেলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজি আজাদ!

  • প্রকাশের সময় Thursday, July 23, 2020
  • 228 জন দেখেছেন

ডেক্স রিপোর্টঃ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আব্দুল মান্নান স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের পদত্যাগের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন,‘তিনি (স্বাস্থ্য অধিদফতরের ডিজি) পদত্যাগ করেছেন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।’

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের পদত্যাগপত্র এখন রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে। রাষ্ট্রপতি অনুমোদন দিলে তার নিয়োগের অবসান হবে।

চাকরির নির্ধারিত মেয়াদ শেষে দুই বছরের চুক্তিতে ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক আবুল কালাম। আগামী বছরের ১৪ এপ্রিল তার সেই চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) থাকার সময় ২০১৬ সালের ২১ আগস্ট অধ্যাপক আজাদকে ডিজি নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করা হয়। ওই বছরের ১ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য অধিদফতরের শীর্ষ পদে যোগ দেন তিনি। গত বছরের ১৪ এপ্রিল তার চাকরি মেয়াদ শেষ হয়। এরপরই চুক্তিতে নিয়োগ পান তিনি।

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ শুরু হলে চিকিৎসা কার্যক্রমসহ নানা বিষয় নিয়ে সমালোচিত হন ডিজি আবুল কালাম আজাদ। এন-৯৫ মাস্কের মোড়কে বিভিন্ন হাসপাতালে সাধারণ মাস্ক সরবরাহ কেলেঙ্কারির ঘটনায় সমালোচিত হন ডিজি।

সর্বশেষ রিজেন্ট হাসপাতালের কেলেঙ্কারিতে সমালোচনায় পড়েন তিনি। সরকার রিজেন্ট হাসপাতালের দুটি শাখাকে (উত্তরা ও মিরপুর) কোভিড চিকিৎসার দায়িত্ব দিয়ে সমঝোতা স্মারক সই করে। কিন্তু র‌্যাবের অভিযানে বেড়িয়ে আসে হাসপাতালের মেয়াদোত্তীর্ণ লাইসেন্সের বিষয়টি। এছাড়া নমুনা পরীক্ষা না করেই সনদ দিতো রিজেন্ট হাসপাতাল।

এ নিয়ে সমালোচনার শুরু হলে ব্যাখ্যা দেয় স্বাস্থ্য অধিদফতর। অধিদফতরের মহাপরিচালক ব্যাখ্যায় জানান, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করা হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের ওই ব্যাখ্যায় ক্ষুব্ধ হয় মন্ত্রণালয়। এরপর স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালককে চিঠি দিয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়।

জবাবে আবুল কালাম আজাদ জানান,তৎকালীন স্বাস্থ্য সচিব আসাদুল ইসলাম এ বিষয়ে অধিদফতরের পরিচালককে (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) মৌখিক নির্দেশ দিয়েছিলেন। তার নির্দেশেই মন্ত্রীর উপস্থিতিতে রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করে অধিদফতর।

শেয়ার করুন

একই ধরনের খবর
ব্রেকিং নিউজ