1. suhagranalive@gmail.com : admin :
October 24, 2021, 9:35 am
শিরোনাম:
পিরোজপুরে তিন‘শো’ পরিবার পেল প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহযোগিতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফসল পদ্মা সেতুর উপরে সড়কপথের কাজ শতভাগ শেষ ইন্দুরকানীতে ছাত্র ইউনিয়নের নতুন কমিটি ২১ আগস্টে ঘাতকেরা ১৫ ই আগস্টের কালো অধ্যায়ের দাড়ি টানতে চেয়েছিলো!.. কবিতাঃ মহান নেতা শেখ মুজিব, “যত দূরে যাও পাখি, দেখা হবে ফের,স্বাধীন ঐ আকাশটা শেখ মুজিবের” শোকের মাসে যুবলীগ নেতা লিটন সিকদার এর তত্ত্বাবধানে ৭০০ অসহায় পরিবার পেল খাদ্য সহায়তা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পিরোজপুরে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এর ৯১তম জন্ম বার্ষিকী পালন ২০ বছর পরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের পিরোজপুর জেলা কমিটি ঘোষণা পিরোজপুরে চালু হলো বিনামূল্যে অক্সিজেন ব্যাংক

স্বাধীনতার সূর্য সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধার পরিবার থাকেন পলিথিনের ঝুপড়ি ঘরে!

  • প্রকাশের সময় Tuesday, July 6, 2021
  • 159 জন দেখেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মাটিভাঙ্গা পূর্ব বানিয়ারী গ্রামের মৃত ফজলুর রহমান হাওলাদার, যিনি দেশ স্বাধীনের সময় ভারতে গিয়ে ট্রেনিং নিয়ে দেশে এসেছিলেন তার সাথে তাদের একই বংশের আরও ৭ জন ভারতের ট্রেনিং প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা তাতে কি হবে জীবিত থাকাকালীন অভাবে অনাহারে পলিথিন মোড়ানো ঝুপড়ী ঘরে তিন মেয়ে এক ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে কেটেছে জীবন। হ্যাঁ তিনি মৃত্যুর পরে রাস্ট্রীয় গার্ড অব অনার পেয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যখন লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে হাজার হাজার অসহায় পরিবারকে ঘর দিচ্ছেন তখন কি কারনে বার বার তালিকায় উঠে নাম বাদ যায় তা বুঝে আসছেনা তার সন্তানদের? প্রতিবেদক যখন এই প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার বাড়ীতে পাঁ রাখেন তখন দেখলেন বসতভিটের ওপর দাঁড়িয়ে আছে কয়েকটি বাঁশের খুঁটি। চারদিকে খোলা। তবে খুঁটির ওপর নারিকেল পাতা ও পলিথিন দিয়ে একটি ছাউনি দেয়া এ যেন ধ্বংস স্তুপে বসবাস! পলিথিন টাও প্রায় ছিঁড়ে গেছে! ভেতরে ভাঙা কাঠের ওপর পড়ে আছে দীর্ঘদিনের পুরোনো পোশাক আর আসবাবপত্র। যাকে একটি ঘর বলাও মুশকিল! কিন্তু এটিই প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান হাওলাদার এর ঘর যেটাতে তিনি মৃত্যুর পূর্বে পরিবার নিয়ে থেকেছেন। ভাবতে অবাক লাগে স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে এটাই দেখতে হলো।

অসচ্ছল এই পরিবারের দাবি তাদের নামে সরকারি ঘর বরাদ্দের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হচ্ছে অদৃশ্য হাতের ছোঁয়ায়!

প্রতিবেশিদের কাছে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মাটিভাঙ্গা পূর্ববানিয়ারী গ্রামের ফজলুর রহমানের জীবদ্দশা কেটেছে অসচ্ছলভাবে। তার ভাগ্যে জোটেনি একটি ভালো ঘর। বর্তমানে ঘরটি জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে।
বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান হাওলাদার এক ছেলে, তিন মেয়ে ও স্ত্রী রেখে এই ভাঙা ঝুপড়ি ঘরেই মৃত্যুবরণ করেন । সে সময় রাস্ট্রীয় গার্ড অব অনার দিতে আসা জেলার এডিসি স্যার নাকি তার পরিবারকে ঘর দেয়ার কথা দেন যা তার মেয়ে সেলিনার বক্তব্যে উঠে আসে।

সরকার অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দ্বিতল ঘর তৈরি করে দিচ্ছেন। অথচ সেই ঘর পাওয়ার তালিকা থেকে নাম বাদ দেয়া হয়েছে ফজলুর রহমানের পরিবারকে। সরকারি একটি ঘর পাওয়ার জন্য তারা ধরনা দিচ্ছেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমানের মেয়ে সেলিনা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুক্তিযোদ্ধাদের ঘর বিতরণ তালিকা প্রণয়নে কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। এরপরও আমার বাবার নামটি তালিকায় স্থান পেয়েও কী কারণে বাদ পরেছে, তা জানি না। আমার পরিবার এক প্রকার খোলা আকাশের নিচে আছে। আমি প্রধানমন্ত্রীর দেয়া মুজিববর্ষের একটি ঘর পাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

প্রতিবেশী আবু সাইদ হাওলাদার ও লোকমান হাকিম হিরু বলেন, উপজেলায় এ পরিবারের চেয়ে গরিব আর কোনো মুক্তিযোদ্ধা আছেন কিনা আমার জানা নাই। তবুও কোনো এরা ঘর পেলেন না তা আমার জানা নাই।
এলাকাবাসী মনে করে এই এলাকায় কেউ সরকারি ঘর পেলে তা প্রথমে এই মুক্তিযোদ্ধা পরিবার পাওয়ার উপযুক্ত।

শেয়ার করুন

একই ধরনের খবর
ব্রেকিং নিউজ